loader image for Bangladeshinfo

ব্রেকিং নিউজ

  • টেস্ট র‍্যাংকিংয়ে অস্ট্রেলিয়ার আরও পতন

  • শেষ হলো শারদীয় দুর্গোৎসব

  • আইয়ুব বাচ্চুর মরদেহ চট্টগ্রামে, আজ দাফন

  • সৌদি আরব থেকে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

  • নেশন্স লিগে সুইজারল্যান্ডকে হারিয়েছে বেলজিয়াম

ই-কমার্স দিবস ও ই-কমার্স সপ্তাহ ২০১৮ উদযাপন


ই-কমার্স দিবস ও ই-কমার্স সপ্তাহ ২০১৮ উদযাপন

ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ (ই-ক্যাব) বাংলাদেশের ই-কমার্স খাতের কাঙ্খিত উন্নয়ন ত্বরান্বিত করার উদ্দেশ্যে প্রতি বছরের মতো এবারও এবারও ‘ই-কমার্স দিবস’ এবং ‘ই-কমার্স সপ্তাহ’ (৭-১৩ এপ্রিল) উদযাপন করছে। ই-ক্যাবের ৭২১টি সদস্য কোম্পানিসহ সারাদেশের ই-কমার্স সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি, বিভিন্ন বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি ও ই-কমার্স উদ্যোক্তাদের এই উদযাপনে যোগদানের কথা রয়েছে বলে ই-ক্যাব সম্প্রতি এক সংবাদ সম্মেলনে জানিয়েছে।

সংবাদ সম্মেলনে ই-ক্যাব-এর সভাপতি শমী কায়সার এবং সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ আবদুল ওয়াহেদ তমাল ই-কমার্স সপ্তাহ ও ই-কমার্স দিবস উদযাপনের পটভূমি ও মূল প্রতিপাদ্য বিষয় ‘বাণিজ্য থেকে ই-বাণিজ্য’-এর গুরুত্ব তুলে ধরেন এবং ই-কমার্স খাতের প্রসারে দেশের প্রায় ৭০ লাখ নিবন্ধিত ব্যবসা প্রতিষ্ঠানকে ডিজিটাল ব্যবসায় রূপান্তর এখন সময়ের দাবি বলে উল্লেখ করেন। ই-ক্যাবে প্রতিনিধিরা আশাবাদ ব্যক্ত করেন যে, এই আয়োজন দেশের ই-কমার্স খাতের বিকাশ এবং এ-বিষয়ে প্রচারণা ও প্রসারে অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে, যা সারাদেশের ব্যবসায়ীদের তাঁদের ব্যবসাকে ই-বাণিজ্য প্রক্রিয়ায় রূপান্তর করতে উৎসাহিত করবে।

শুরু থেকেই ই-ক্যাব দেশের ই-কমার্স খাতের সার্বিক উন্নয়ন নিশ্চিত ও ত্বরান্বিতকরণে সরকারের সাথে একযোগে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। অ্যাসোসিয়েশন সদস্যদের সার্বজনীন স্বার্থ সমন্বয় ও অগ্রগায়ন এবং বাংলাদেশে বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টি করার লক্ষ্যে সরকার, ই-কমার্স উদ্যোক্তা ও সংশ্লিষ্ট সবার সাথে প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ই-ক্যাব। ই-ক্যাবের এই আয়োজন সফল করতে ই-কমার্স উদ্যোক্তা ও ভোক্তাদেরকে যোগদান করার জন্য আহ্বান জানানো হয়েছে।

ই-ক্যাব হলো দেশের একমাত্র বেসরকারি ই-কমার্স-বিষয়ক অ্যাসোসিয়েশন, যারা ই-কমার্স উদ্যোক্তাদের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন হিসেবে তাদের স্বার্থ সুরক্ষায় সরকারের পরামর্শকের ভূমিকা পালন করে থাকে।

বাংলাদেশের ই-কমার্স খাতের উন্নয়নের লক্ষ্য সামনে রেখে ২০১৫ সালে ই-ক্যাব-এর যাত্রা শুরু হয়। শুরু থেকেই দেশের ই-কমার্স খাতের উন্নয়নে ভূমিকা পালন করতে শুরু করে সংগঠনটি। ই-ক্যাব ইতোমধ্যে একটি যুগোপযোগী জাতীয় ই-কমার্স নীতিমালা প্রণয়নের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরে সরকারের সহায়তায় জাতীয় ই-কমার্স নীতিমালার খসড়া তৈরি করেছে এবং এটি বাস্তবায়ন প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

ই-ক্যাব মূলত অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যদের স্বার্থ সমন্বয়, এ-খাতে বিনিয়োগবান্ধব পরিবেশ সৃষ্টিতে সরকারকে উৎসাহিত করা, দেশ-বিদেশে ই-কমার্সভিত্তিক বিভিন্ন প্রচারণা ও প্রসারমূলক কর্মকাণ্ড - যেমন কর্মশালা, সেমিনার, কনফারেন্স, সামিট, ই-বাণিজ্য মেলা ইত্যাদি আয়োজনে সরকার ও সংগঠনের সদস্য ই-কমার্স উদ্যোক্তাদের সহায়তা প্রদান, ই-কমার্সের বিষয়ভিত্তিক বিবিধ তথ্য-উপাত্ত সংগ্রহ ও বিশ্লেষণ, ই-কমার্স খাতের সার্বিক উন্নয়নে দেশের অভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলের পরিপ্রেক্ষিত নিয়ে গবেষণা প্রভৃতি নিয়ে কাজ করছে।

- সংবাদ বিজ্ঞপ্তি

Loading...