loader image for Bangladeshinfo

ব্রেকিং নিউজ

  • তৃতীয় ড্রিমলাইনার গাংচিল উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

  • গ্রামীণফোনে নতুন সিএফও যোগ দিয়েছেন

  • ‘এসআইটি’ পদ্ধতিতে এডিস মশা নিয়ন্ত্রণ বিষয়ে আলোচনা অনুষ্ঠিত

  • ঢাবি’র ৫২তম সমাবর্তনের নিবন্ধনের সময়সীমা বৃদ্ধি

  • ফ্রাঙ্ক রিবেরি এখন ফিওরেন্টিনায়

বিপিএল: পরাজয়ের বৃত্তে ঢাকা ডায়নামাইটস


বিপিএল: পরাজয়ের বৃত্তে ঢাকা ডায়নামাইটস

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ, শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম, মিরপুর, ২২ জানুয়ারি

সংক্ষিপ্ত স্কোর

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স: ১৫৩/৮, ২০ ওভার (শামসুর ৪৮, তামিম ৩৪, সাকিব ৩/২৪)
ঢাকা ডায়নামাইটস: ১৪৬/৯, ২০ ওভার (রাসেল ৪৬, নারাইন ২০, পেরেরা ৩/১৪)
ফলাফল: কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স ৭ রানে জয়ী।
প্লেয়ার অফ দি ম্যাচ: থিসারা পেরারা (কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স)

বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল)-এর চলতি আসরে টানা জিততে থাকা ঢাকা ডায়নামাইটস হঠাৎ করেই পরাজয়ের বৃত্তে এলো। মঙ্গলবার (২২ জানুয়ারি) কুমিল্লার করা ১৫৩ রানের বিপক্ষে ব্যাট করতে নেমে ৭ রানে হেরেছে সাকিব আল হাসানের ঢাকা।

১৫৪ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে শুরুটা মোটেই ভালো হয়নি ঢাকার। ইনিংসের পঞ্চম বলেই আউট হয়ে ফেরেন হজরতুল্লাহ জাজাই। মাত্র এক রানে মোহাম্মদ সাইফউদ্দিনের বলে থিসারা পেরেরার হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন তিনি। মাত্র দুই রানেই প্রথম উইকেট হারিয়ে ফেলা ঢাকার স্কোরে ১৯ রান যোগ করেন রনি তালুকদার ও সুনীল নারাইন। এই পর্যায়ে পাকিস্তানি পেসার ওয়াহাব রিয়াজের বলে এনামুল হকের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন রনি। আউট হওয়ার আগে তাঁর ব্যাট থেকে আসে ১১ বলে ছয় রান।

মাত্র নয় রান যোগ করে ফেরেন নারাইন। রান আউট হয়ে ফেরার আগে তাঁর ব্যাট থেকে আসে ১৮ বলে ২০ রান। দলীয় ৫০ রানে ঢাকা হারায় নিজেদের চতুর্থ উইকেট। ১৫ বলে ১৯ রান করা ডারউইস রাসোলিকে ফেরান শহীদ আফ্রিদি।

অধিনায়ক সাকিব ও আন্দ্রে রাসেল মিলে কুমিল্লা বোলারদের ওপর এক প্রকার ঝড়ই বইয়ে দেন। দুজন মিলে করেন ৬২ রান। ক্রমেই ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠা রাসেলকে ফিরিয়ে এই জুটি ভাঙেন থিসারা পেরেরা। ২৪ বলে ৪৬ রানের ইনিংসে রাসেল খেলেন দুটি চার ও পাঁচটি ছক্কা।

ভরসা হয়ে থাকা সাকিব ফেরেন আফ্রিদির বলে। শামসুর রহমানের হাতে ক্যাচ দিয়ে ফেরার আগে ১৯ বলে ২০ রান করেন সাকিব। পরপর আউট হয়ে ফেরেন শুভাগত হোম, নুরুল হাসান সোহান, রুবেল হোসেন। কুমিল্লার হয়ে তিন উইকেট নিয়েছেন পেরেরা। এছাড়া দু’টি উইকেট নেন আফ্রিদি ও একটি করে উইকেট নেন সাইফউদ্দিন ও ওয়াহাব রিয়াজ।   

এর আগে, ঢাকার সামনে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৫৪ রানের টার্গেট দেয় কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। কুমিল্লার হয়ে সর্বোচ্চ ৪৮ রান আসে শামসুর রহমানের ব্যাট থেকে। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৩৪ রান করেন তামিম ইকবাল। ঢাকার হয়ে বল হাতে সবচেয়ে সফল অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। ২৪ রান দিয়ে তিনি নেন তিনটি উইকেট।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টসে জিতে ফিল্ডিং বেছে নেন ঢাকার অধিনায়ক সাকিব। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ১৭ রানেই ওপেনার এনামুল হকের উইকেট হারায় কুমিল্লা। রাসেলের করা ইনিংসের তৃতীয় ওভারের প্রথম বলেই ফেরেন এনামুল (১)। ১০ রান বাদে বিদায় নেন কুমিল্লার দলপতি ইমরুল কায়েস (৭)। তাঁকে বোল্ড করে ফেরান রুবেল হোসেন।

২৭ রানে দুই উইকেট হারিয়ে ফেলা কুমিল্লাকে পথ দেখান ওপেনার তামিম ও শামসুর। দুজনে মিলে ৫১ রানের জুটি গড়েন। ২৯ বলে একটি চার ও দুইটি ছক্কায় ৩৪ রান করা তামিমকে রনি তালুকদারের ক্যাচ বানিয়ে আউট করেন সাকিব। আট বলে দুইটি চার ও একটি ছক্কায় ১৬ রান করে সাকিবের বলে বিদায় নেন অলরাউন্ডার আফ্রিদিও।

দলীয় ১১২ রানে কুমিল্লার পঞ্চম উইকেট হিসেবে বিদায় নেন শামসুর। সাকিবের তৃতীয় শিকারে পরিণত হওয়ার আগে ৩৫ বলে তিনটি চার ও একটি ছক্কায় ৪৮ রানের ইনিংস খেলেন তিনি। এরপর উল্লেখযোগ্য সংখ্যক রান এসেছে শুধু থিসারার ব্যাট থেকে। ১২ বলে তিনটি ছক্কায় তাঁর ২৬ রানের ইনিংসটি শেষ হয় রান আউটে পড়ে। 

সাকিব তিনটি উইকেট নিয়েছেন। দুইটি করে উইকেট ঝুলিতে পেয়েছেন রাসেল ও রুবেল হোসেন।

আট ম্যাচে পাঁচটি জয় ও তিনটি হারে ১০ পয়েন্ট নিয়ে রান রেটে এগিয়ে টেবিলের শীর্ষেই রয়েছে ঢাকা। সমানসংখ্যক ম্যাচে ১০ পয়েন্ট সংগ্রহ কুমিল্লারও।

Loading...