loader image for Bangladeshinfo

শিরোনাম

  • নতুন করে আরও ৭২ ঘণ্টার তাবদাহের সতর্কতা জারি

  • সহকারী প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগের সংশোধিত ফলাফল প্রকাশিত

  • অভিনেতা ওয়ালিউল হক রুমি আর নেই

  • এফএ কাপে টাইব্রেকারে জিতে ফাইনালে ম্যানইউ

  • ক্লাসিকোতে বার্সাকে হারিয়ে শিরোপার আরও কাছে রিয়াল

পোশাক কারখানা এলাকায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ফিরেছে: বিজিএমইএ


পোশাক কারখানা এলাকায় শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ফিরেছে: বিজিএমইএ

রাজধানী ঢাকা, আশুলিয়া, গাজীপুর, সাভারসহ পোশাক শিল্প অধ্যুষিত সকল এলাকায় বর্তমানে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিরাজ করছে বলে জানিয়েছে রপ্তানিমুখী পোশাক শিল্প মালিকদের সংগঠন বিজিএমইএ। এমতাবস্থায় আশুলিয়ার সকল বন্ধ কারখানা বুধবার (১৫ নভেম্বর) খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সংগঠনটি। তবে একইসাথে কারখানাগুলোতে নিরাপত্তা নিশ্চিত করার জন্য আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন তাঁরা।

বিজিএমইএ মঙ্গলবার (১৪ নভেম্বর) সন্ধ্যায় পোশাক শিল্পের বর্তমান শ্রম পরিস্থিতি নিয়ে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, পোশাক কারখানাগুলোতে এখন পুরোদমে উৎপাদন কার্যক্রম চলছে। মঙ্গলবার কোনো কারখানায় শ্রম অসেন্তোষের ঘটনা ঘটেনি। 

সংগঠনটি আরও জানায়, তাঁদের আহ্বানে সাড়া দিয়ে আশুলিয়া এলাকার সকল বন্ধ পোশাক কারখানার শ্রমিকরা কাজে ফিরতে আগ্রহী। শ্রমিকরাও মালিকদেরকে আশ্বস্ত করেছেন যে, কারখানাগুলো খুলে দেওয়া হলে তাঁরা কারখানায় সুষ্ঠুভাবে কাজ করবেন। এর প্রেক্ষিতে বুধবার (১৫ নভেম্বর) সকল কারখানা খুলে দেওয়া হবে।

উল্লেখ্য, সম্প্রতি সরকার পোশাক শ্রমিকদের জন্য ১২,৫০০ টাকার ন্যূনতম নতুন মজুরি  ঘোষণা করে। শ্রমিকরা মজুরি আরও বাড়ানোর দাবিতে আন্দোলন করে আসছে। শ্রমিক আন্দোলনকে কেন্দ্র করে ইতোমধ্যে বেশ কিছু কারখানায় ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। এর প্রেক্ষিতে আশুলিয়া, মিরপুরসহ আরও কিছু জায়গায় একাধিক পোশাক কারখানা বন্ধ করে দেওয়া হয়।

বিজিএমইএ-এর আহ্বানে সাড়া দিয়ে শ্রমিকরা কাজে ফেরার আগ্রহ প্রকাশ করলে কাশিমপুর ও কোনাবাড়ি এলাকার তিনটি পোশাক কারখানা ইতোমধ্যে খুলে দেওয়া হয়েছে। ফলে, বর্তমানে কাশিমপুর ও কোনাবাড়ি এলাকার সকল কারখানায় স্বাভাবিকভাবে উৎপাদন কার্যক্রম চলছে বলে বিজিএমইএ জানিয়েছে।

সংগঠনটি জানায়, ঢাকায় মিরপুরের কিছু পোশাক কারখানা বন্ধ রয়েছে। এই কারখানাগুলোতে আলোচনা চলছে। শ্রমিকরা যদি কাজ করতে চান, তাহলে কারখানাগুলো খুলে দেওয়া হবে।

বিজিএমইএ পোশাক কারখানাসহ সকল ধরনের শিল্প প্রতিষ্ঠানে নিরাপত্তা প্রদানে শিল্পাঞ্চলে সুষ্ঠু আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশ নিশ্চিত করার আহ্বান জানিয়েছে। তবে, জানমালের নিরাপত্তায় কঠোর পদক্ষেপ গ্রহণের কারণে কোনো শ্রমিক বা কর্মচারী এবং মালিক যেন কোনো ধরনের হয়রানির শিকার না হন, সে-বিষয়ে সতর্ক থেকে কাজ করার অনুরোধ করেছে।

Loading...