loader image for Bangladeshinfo

শিরোনাম

  • ৩৪ বলে ম্যাচ জিতে সুপার এইটে অস্ট্রেলিয়া

  • শ্রীলংকার স্বপ্নভঙ্গ; সুপার এইটে দক্ষিণ আফ্রিকা

  • টি-২০ বিশ্বকাপে পাকিস্তানের প্রথম জয়

  • প্রীতি ম্যাচে গোলে পর্তুগালের বড় জয়

  • বিশ্বকাপ বাছাই: লেবাননের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের পরাজয়

বৈশ্বিক উষ্ণতা বাড়ছে নজিরবিহীন গতিতে


বৈশ্বিক উষ্ণতা বাড়ছে নজিরবিহীন গতিতে

সারাবিশ্বে নজিরবিহীন গতিতে বাড়ছে উষ্ণতা। ৫০ জনেরও বেশি শীর্ষস্থানীয় বিজ্ঞানী বুধবার (৫ জুন) প্রকাশিত এক গবেষণাপত্রে এ-বিষয়ে সতর্ক করেছেন। আর্থ সিস্টেম সায়েন্স জার্নালে প্রকাশিত এই গবেষণায় বলা হয়েছে, দশকের গড় হিসেবের দিকে তাকালে দেখা যায়, ২০১৪ সাল থেকে ২০২৩ পর্যন্ত তাপমাত্রা বেড়েছে ০.২৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এটি গড় হিসেবে বিগত দশকের তাপমাত্রার চেয়ে বেশি। গবেষণাপত্রে বলা হয়েছে, মানবসৃষ্ট এই উষ্ণতা নজিরবিহীন। জার্মানিতে চলতি সপ্তাহে বছরের মাঝামাঝি সময়ের জলবায়ু সম্মেলনের এবং নভেম্বর আজারবাইজানের বাকুতে জাতিসংঘের কপ-২৯ জলবায়ু সম্মেলনের প্রাক্কালে গবেষণাপত্রটি প্রকাশ করা হলো। খবর – আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমের।

১৮৫০ সাল থেকে ১৯০০ সাল পর্যন্ত প্রাক-শিল্পযুগে ভূপৃষ্ঠের গড় তাপমাত্রা ১.১৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসেরও বেশি বৃদ্ধি পেয়েছিল।

বিশ্ব নেতারা ২০১৫ সালের প্যারিস চুক্তিতে বৈশ্বিক উষ্ণতার হার দুই ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে রাখার বিষয়ে সম্মত হয়েছিলেন। তখন বলা হয়েছিল, বৈশ্বিক উষ্ণতা ১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে সীমাবদ্ধ রাখতে পারা সবচেয়ে নিরাপদ। কিন্তু বুধবারের প্রতিবেদনটিতে দেখা গেছে, ২০২৩ সালের শেষ নাগাদ মানুষের কর্মকাণ্ডে তাপমাত্রা প্রাক-শিল্পযুগের আগের স্তরে পৌঁছেছে।

২০১৩ সাল থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত সময়ে উষ্ণতার জন্যে দায়ী কার্বনসহ অন্যান্য গ্যাসের বার্ষিক গড় নিঃসরণের পরিমাণ ৫৩ বিলিয়ন টন। ২০২২ সালে নিঃসরণের পরিমাণ ছিল ৫৫ বিলিয়ন টন।

গবেষণাপত্রের সহ-লেখক পিয়েরে ফ্রিডলিংস্টেইন এক সংবাদ ব্রিফিংয়ে বলেছেন, যে-পরিমাণে গ্যাস নিঃসরণ হবে, তাপমাত্রাও সে-গতিতে বাড়বে। নিঃসরণে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন না-হলে তাপমাত্রা ১.৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে রাখার লক্ষ্য অর্জিত হবে-না বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

Loading...