loader image for Bangladeshinfo

ব্রেকিং নিউজ

  • যুক্তরাজ্যের ভ্রমণ লাল-তালিকায় আর নেই বাংলাদেশ

  • নভেম্বর থেকে ইউএস-বাংলার ঢাকা-মালে ফ্লাইট শুরু

  • ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল খুলবে ৫ অক্টোবর

  • ছয় ঘণ্টা নয়, চার ঘণ্টা বন্ধ থাকবে সিএনজি ফিলিং স্টেশন

  • টেকসই ভবিষ্যত নিশ্চিতে প্রধান অর্থনীতির দেশগুলোর ভূমিকা চান প্রধানমন্ত্রী

একদিনের ম্যাচে ভারতের কাছে উড়ে গেলো শ্রীলঙ্কা


একদিনের ম্যাচে ভারতের কাছে উড়ে গেলো শ্রীলঙ্কা

শেখর ধাওয়ানের নেতৃত্বে মধ্যমসারির দল নিয়ে শ্রীলঙ্কা সফরে গিয়ে একদিনের ম্যাচ জিততে এতটুকু সমস্যাও হয়নি ভারতের। শ্রীলঙ্কাকে তাঁদেরই মাটিতে রীতিমতো উড়িয়ে দিয়েছে সফরকারী দল। কলম্বোর প্রেমাদাসা স্টেডিয়ামে রোববার (১৮ জুলাই) শ্রীলঙ্কাকে সাত উইকেটে হারিয়েছে ভারত। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে নয় উইকেট হারিয়ে ২৬২ রান সংগ্রহ করে স্বাগতিকরা। জবাবে ৮০ বল বাকি থাকতেই লক্ষ্যে পৌঁছায় ধাওয়ানের দল।

লক্ষ্যটা তেমন বড় ছিল না; জিততে হলে করতে হবে ২৬৩ রান। কিন্তু এই রান করতে শুরু থেকেই আগ্রাসী ব্যাটিং করতে থাকেন ভারতীয় ওপেনার পৃথ্বী শ। আরেক ওপেনার শেখর ধাওয়ান দেখেশুনে খেললেও এক প্রান্তে ঝড় তোলেন তিনি। মাত্র ৪.৫ ওভারেই দলীয় হাঁফ সেঞ্চুরি পূরণ করেছে দলটি। পাঁচ ওভারে এসেছে ৫৭ রান।

ষষ্ঠ ওভারে অবশ্য পৃথ্বীকে ফিরিয়ে দেন ধনাঞ্জয়া ডি সিলভা; কিন্তু তাঁর জায়গায় ব্যাট করতে নামা ইশান কিশান ব্যাটিং-তাণ্ডব ঠিকই চালিয়ে গেছেন। দ্বিতীয় উইকেটে ধাওয়ানের সঙ্গে গড়েন ৮৫ রানের জুটি। এরপর কিশান ফিরে গেলে মানিস পাণ্ডের সঙ্গে ৭২ রানের আরও একটি দারুণ জুটি গড়েন ধাওয়ান। আর এতেই জয়ের ভিত পেয়ে যায় দলটি। এরপর বাকি কাজটা সূর্যকুমার যাদবকে নিয়ে শেষ করেন অধিনায়ক। ৪৮ রানের অবিচ্ছিন্ন এক জুটিতে জয় নিশ্চিত করেই মাঠ ছাড়েন ভারতীয়রা।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৮৬ রানের ইনিংস খেলে শেষ পর্যন্ত অপরাজিত থাকেন ধাওয়ান। ৯৪ বলে ছয়টি চার ও একটি ছক্কায় নিজের ইনিংস সাজান অধিনায়ক। ইশানের ব্যাট থেকে এসেছে ৫৯ রান। ৪২ বলে আটটি চার ও দুইটি ছক্কার সাহায্যে এই রান করেন তিনি। ২৪ বলে নয়টি চারের সাহায্যে ৪৩ রানের ঝড়ো একটি ইনিংস খেলেন পৃথ্বী। এছাড়া সূর্যকুমার অপরাজিত ৩১ ও মানিস ২৬ রান করেন।

শ্রীলঙ্কার পক্ষে দুই উইকেট নিয়েছেন ধনাঞ্জয়া।

এর আগে টস জিতে প্রথমে ব্যাট করতে নামা শ্রীলঙ্কার কোনো ব্যাটসম্যানই হাল ধরতে পারেননি। প্রায় সব ব্যাটসম্যানই উইকেটে সেট হয়েছেন, কিন্তু ইনিংস বড় করতে পারেননি। ফলে, গড়ে ওঠেনি বড় কোনো জুটি। এমনকি কোনো ব্যাটসম্যান অর্ধশত রানও স্পর্শ করতে পারেনি। যাহােক, ছোট ছোট জুটিতে কোনোমতে ২৬০ রান পার করে দলটি।

অথচ আভিস্কা ফের্নান্ডো ও মিনদ ভানুকার সূচনা-জুটিতে এসেছে ৪৯ রান, যা ইনিংসের সর্বোচ্চ জুটিও বটে। তবে অষ্টম উইকেটে ইশুরু উদানার সঙ্গে চামিকা কারুনারাত্নের ৪০ রানের জুটিতেই লড়াইয়ের পুঁজি পেয়েছে শ্রীলঙ্কা। কোনো ফিফটি ছাড়া এটিই দলটির সর্বোচ্চ ইনিংস।

সর্বোচ্চ ৪৩ রানের ইনিংস খেলে অপরাজিত ছিলেন চামিকা, যেখানে ৩৫ বলে ছিল একটি চার ও দুইটি ছক্কা। এছাড়া, অধিনায়ক দাসুন শানাকার ব্যাট থেকে এসেছে ৩৯ রান। ৫০ বলে দুইটি চার ও একটি ছক্কা মেরে এই রান করেন অধিনায়ক। ৬৫ বলে একটি চারের সাহায্যে ৩৮ রান করেছেন চারিথ আসালাঙ্কা।

ভারতের পক্ষে দুইটি করে উইকেট শিকার করেছেন দিপক চাহার যুজবেন্দ্র চাহাল ও কুপদিপ যাদব।

Loading...