loader image for Bangladeshinfo

ব্রেকিং নিউজ

  • যুক্তরাজ্যের ভ্রমণ লাল-তালিকায় আর নেই বাংলাদেশ

  • নভেম্বর থেকে ইউএস-বাংলার ঢাকা-মালে ফ্লাইট শুরু

  • ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবাসিক হল খুলবে ৫ অক্টোবর

  • ছয় ঘণ্টা নয়, চার ঘণ্টা বন্ধ থাকবে সিএনজি ফিলিং স্টেশন

  • টেকসই ভবিষ্যত নিশ্চিতে প্রধান অর্থনীতির দেশগুলোর ভূমিকা চান প্রধানমন্ত্রী

অলিম্পিক ফুটবল: ফাইনালে ব্রাজিলের প্রতিপক্ষ স্পেন


অলিম্পিক ফুটবল: ফাইনালে ব্রাজিলের প্রতিপক্ষ স্পেন

নির্ধারিত সময়ের পরে অতিরিক্ত ৩০ মিনিটের খেলাও যখন শেষের পথে, ম্যাচ স্বাভাবিক কারণেই যাচ্ছিল টাইব্রেকারের দিকে। যাহোক, বদলি নামা মার্কো আসেনসিওর ভাবনায় তখনও ছিল ভিন্ন কিছু। শেষ বাঁশি বাজার কিছুক্ষণ আগে দারুণ লক্ষ্যভেদে দলকে উল্লাসে ভাসান রিয়াল মাদ্রিদের এই তারকা। তাঁর কল্যাণে স্বাগতিক জাপানকে হারিয়ে টোকিও অলিম্পিক ফুটবলের ফাইনালে উঠলো স্পেন।

মঙ্গলবার (৩ অগাস্ট) আসরের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে ১-০ গোলের কষ্টার্জিত জয় পেয়েছে স্প্যানিশরা। ১১৫তম মিনিটে ম্যাচের ভাগ্য গড়ে দেন আসেনসিও। তাঁর দর্শনীয় গোলটির যোগানদাতা মিকেল ওইয়ারজাবাল।

সোনার পদক জয়ের লড়াইয়ে আগামী ৭ অগাস্ট স্পেন মুখোমুখি হবে অলিম্পিকের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিলের। প্রথম সেমিতে টাইব্রেকারে ৪-১ গোলে মেক্সিকোকে হারিয়ে আগেই ফাইনালে উঠেছে সেলেসাওরা। নির্ধারিত ও অতিরিক্ত সময়ে মিলিয়ে ১২০ মিনিটের খেলা শেষ হয়েছিল গোলশূন্যভাবে।

এদিন সাইতামা স্টেডিয়ামে বরাবরের মতোই বল নিয়ন্ত্রণে রেখে খেলেছে স্প্যানিশরা। গত ইউরোপিয়ান চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনালে পৌঁছানো দলের ছয় জনকে এদিন একাদশে রেখে ম্যাচে দাপট দেখিয়েছে দলটি। প্রায় ৬১ শতাংশ সময়ে বল পায়ে রেখে তাঁরা শট নিয়েছেন ১৮টি, যার মধ্যে লক্ষ্যে ছিল ছয়টি। অন্যদিকে, জাপানের নেওয়া নয়টি শটের মাত্র একটি ছিল লক্ষ্যে।

৩৫তম মিনিটে প্রথমার্ধের সেরা সুযোগটি নষ্ট হয় স্পেনের। পেদ্রির দুর্দান্ত পাসে জাপানের রক্ষণভাগে জায়গা পেয়ে যান রাফা মির। আগের ম্যাচে আইভরিকোস্টের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করা এই ফরোয়ার্ড গোলরক্ষক কোসেই তানিকে পরাস্ত করতে পারেননি।

৫৫তম মিনিটে জাপানের ডি-বক্সে মিকেল মেরিনো পড়ে গেলে পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। কিন্তু ভিএআর-এর সাহায্য নেওয়া হলে বদলে যায় সিদ্ধান্ত। পাশাপাশি, স্বাগতিক দলের অভিজ্ঞ ফুটবলার মায়া ইয়োশিদাকে দেখানো হলুদ কার্ড তুলে নেওয়া হয়।

দ্বিতীয়ার্ধের যোগ করা সময়ের প্রথম মিনিটে ওইয়ারজাবাল ও আসেনসিওর মাধ্যমে গোল পেতে পারতো স্পেন; তবে, ফের বাধা হয়ে দাঁড়ান তানি। আসেনসিওর শট দারুণভাবে লুফে নেন তিনি।

অতিরিক্ত সময়ের প্রথমার্ধে অল্পের জন্য গোল পায়নি জাপান। সতীর্থের মাপা ক্রসে হেড করেছিলেন দাইজেন মায়েদা, কিন্তু স্প্যানিশ গোলরক্ষক উনাই সিমোনকে পরীক্ষায় ফেলতে পারেননি তিনি; বল চলে যায় গোলপোস্টের উপর দিয়ে।

অবশেষে ১১৫তম মিনিটে আসে স্পেনের জয়সূচক গোল। ডি-বক্সের ডান প্রান্ত থেকে বাঁ পায়ের বাঁকানো শটে জাল কাঁপিয়ে দেন আসেনসিও। গোলরক্ষক তানি ঝাঁপিয়ে পড়েও বল রুখে দেওয়ার মতো অবস্থা সৃষ্টি করতে পারেননি। বাকিটা সময়ে এই লিড ধরে রাখে স্পেন।

Loading...